25 September 2017 News

বাজেট ছেঁটে দুঃস্থদের দানের ভাবনা রূপনারায়ণপুরে

৬১ বছরে পা রাখল রূপনারায়ণপুর দুর্গামন্দির সর্বজনীন পুজো৷ মণ্ডপের একেবারে সামনে থাকছে বিশাল স্বস্তিক চিহ্ন৷ পুজোর বাজেট থেকেই খানিক কাটছাঁট করে দুঃস্থ পড়ুয়াদের মধ্যে বই ও অভাবীদের শীতবস্ত্র দেওয়ার কথা ভেবেছেন উদ্যোক্তারা৷ দুর্গামন্দিরের পুজোই শুধু নয় , ছোট -বড় মিলিয়ে সালানপুর -রূপনারায়ণপুরে মোট ৪২টি পুজো হচ্ছে এ বার৷ এর মধ্যে বড় মাপের পুজো হল দু’টি৷ তাদেরই একটি ডাবড় মোড়ের দুর্গামন্দির৷ অন্যটি রূপনারায়ণপুর স্টেশন পাড়া৷ স্টেশন পাড়ার মণ্ডপে এ বার থাকছে কাপড়ের কারুকাজ৷ বারোয়ারি পুজো হলেও আজও এখানকার উদ্যোক্তারা বনেদি পুজোর আমেজ টিকিয়ে রেখেছেন এখানে৷ এই দুই পুজো ছাড়া দর্শক টানার লড়াইয়ে এগিয়ে আছে মহাবীর কলোনির দুর্গাপুজো৷ ৪২ বছরে এ বার পা দিল এখানের দুর্গোত্সব৷ চার দিকে যখন থিমের রমরমা , তখনও সাবেকি ঘরানাতেই পুজো হয় এখানে৷ ৪২ বছরে পা রাখল পশ্চিম রাঙামাটি ১ নম্বর সর্বজনীন দুর্গোত্সবও৷

পুজো কমিটির কর্তা চিত্ত মাজি ও কুন্তল দে বলেন , ‘মূর্তিতে অভিনবত্ব রাখা হচ্ছে৷ দেবীর রণমূর্তি তুলে ধরছি আমরা৷ ’ পশ্চিম রাঙামাটির এই পুজোর উদ্বোধন করবেন বিধায়ক বিধান উপাধ্যায়৷ দক্ষিণের মন্দিরের আদলে মণ্ডপ তৈরি হয়েছে এখানে৷ পশ্চিম রাঙামাটিরই মহিলা মহলের পুজো আবার ১৯ বছরে পা দিল এ বার৷ নারীশক্তির আধারেই মণ্ডপ তৈরি হয়েছে এখানে৷ রূপনারায়ণপুর দেশবন্ধু পার্কের মণ্ডপ আবার তৈরি হয়েছে ঝুড়ি , কুলো , মাদুর দয়ে৷ এ বছর এই পুজো ২৪ বছরে পড়ল৷ প্রতিমাও আকর্ষণীয় এখানে৷ রূপনগরের পুজো ২৬ বছরে পড়ল এ বার৷ দীর্ঘ দিন থিমের পুজোই হচ্ছিল এখানে৷ সেই ধারা ভেঙে এ বার ফের সাবেকিয়ানায় ফিরেছেন উদ্যোক্তারা৷ শুধু সালানপুর নয় , আশপাশের অনেক এলাকার দর্শনার্থীদের ভিড় হয় এই পুজোয়৷ ১৮ বছরে পা দিল পিঠাকেয়ারি সর্বজনীন পুজো৷ পুজোয় রোজ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকছে এখানে৷ বিশেষ আকর্ষণ আদিবাসীদের অনুষ্ঠান৷ প্রতিবার পুজোয় চমক লাগায় সীমান্তপল্লির নিজস্ব দুর্গামন্দির৷ ব্যতিক্রম নয় এ বারও৷ পুজো উপলক্ষে সেজে উঠেছে চত্বর৷ ৩৪ বছরের এই পুজোয় বনেদিয়ানা থাকছে একশো শতাংশ৷ ৩৪ বছরে পা দিল আমডাঙা সর্বজনীন৷ আলোকসজ্জা ও প্রতিমা দুই ক্ষেত্রেই অভিনবত্ব থাকছে এখানে৷ অরবিন্দনগর সর্বজনীনের এ বারের থিম গ্লোবার ওয়ার্মিং৷ ১৭তম বর্ষে মণ্ডপ সাজানো হচ্ছে হোগলাপাতা দিয়ে৷ এ ছাড়াও উল্লেখযোগ্য ফকরাডি সর্বজনীন , বনজেমারি কোলিয়ারির পুজো , মেমারি আল্লাডির পুজো , আছড়া ষোলো আনা , কল্যাণগ্রাম , মালবহাল , নেতাজি কলোনি , প্রান্তপল্লি , শান্তশ্রীপল্লি ও জোড়বাড়ির পুজো৷

Source: Eisamay